আলতাপ হোসেন লাল্টু অস্ট্রেলিয়া সিডনি থেকে।

কিচিম কথাটার সংগা আমি
পুরো জানি না আংশিক অনুমান নির্ভর ।ষ
একসময় বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন চলতো প্রাপাকান্ডা নির্ভর । আশি ও নব্বই দুদশক তার শাখা ও প্রশাখা ছিলো চোখে পড়ার মতো ।
যেমন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে ফেনি ও খুলনা ইন্ডিয়ার অন্তর্ভুক্তহবে ।কখনো তা ছাপিয়ে বাংলাদেশ চলে যাবে ছড়ানো হতো। সেটা যে সিভিল সমাজের মধ্যে সীমাবদ্ধ তা না ডি জি এফ আই বা সেনাবাহিনীর মধ্যে ও সুকৌশলে চালিয়ে দেওয়া হতো ।সে ব্যবসা খতম হয়েছে একযুগ এর অধিক । কেননা মানুষ ও সব ময়লা আর খায় না ।উল্টো ভারত থেকে ছিটমহল আর সমুদ্রের হিৎস্য নেওয়া হয়েছে । সবটাই হয়েছে রাজনৈতিক বোঝাপড়া করে ।
আসন্ন বিভিন্ন নির্বাচন সমাগত । এখনো গুজব যে নেই তা বলা যাবে না ।
আমি যখন পয়লা ভোটে দাড়ালাম নাবাল্লোক গোছের ছিলাম । তখন মাঠে চালু ছিল (এই দিক) টা এক করো ।মানে কোন কোন অন্চলের মানুষ নাকি অন্যদিকে ভোট যেতে দিবে না।তখনো আমার বাবার সাথে যারা তিন বার চেয়ারম্যান ভোটে কাজ করেছে তাদের বক্তব্য ছিল ধুর খোকা ইন্তাজ ভাই এর সময় ও ঐরকম গুজব ছিল ।
আসলে জনপ্রতিধিত্বের ফরমুলা তে ওটা চলে না। যোগ্যতা আর আত্মবিশ্বাস ই একজন প্রার্থীর জন্য যথেষ্ট ।আমি স্রোতের বিপরীতে নাও বাওয়া পছন্দ করি আর মজা ও পাই। দেখেছি এক প্রান্তের মানুষ অন্য প্রান্তে নিরবে মতামত দিয়ে জনপ্রতিনিধি করে ক্ষ্যন্ত হয়েছে ।গতবারের ভোটের গুজব টা বেশ মজে ছিল । এক প্রার্থী তার যোগ্যতার পরিচয় দিতো যে এদিক টা এক করবে ।মানুষ যখন প্রশ্ন করতো তোমার প্রতিনিধি হওয়ার কোয়ালিটি কি তখন বলতো ঘাট এর সুবিধা ও পুলিশ পাকড় হাতে আছে তাই আর বলা লাগবে না । সবমিলিয়ে লেহালুয়া । আর একজন শোনা যায় পিলখানা,পুলিশ হেডকোয়ার্টারে আর পোশাকি বাহিনীর বিশেষ লোক । আমার এলাকায় আমি তেমন চালু না। কোন রকমে খবর রাখি ।কম বেশি যাদের চিনি তাদের সাথে ই শুধু যোগাযোগ । বেশি উপর মহলে ঘাঁটাঘাঁটি নেই বললেই চলে । আমজনতার পোড়া মূখ খানি দেখলেই খুশি । আজকে সকালে একজন বলছিলো দোকানে বসে হঠাৎ উঠে যেয়ে একজন ফোন করে ফিরেই দোকানে র সবাইকে শুনিয়ে দিলো পরিচিতি উমুক অফিসার আমার খবর নিলো। ইত্যাদি ইত্যাদি । গত সপ্তাহে একজন আমার সাথে কথা বলছিলো সে আবার অন্য গ্রহের ছিলো ।তার নাকি তৃতীয় বার পুলিশে ধরার পর বলেছিলো প্লিজ আমার জন্য কোন কন্ট্রাক্ট করবেন না। আমি জেলে যেতে ইচ্ছুক ও আইনের মধ্যে দিয়ে বাহির হতে ইচ্ছুক । সেই ব্যক্তি আমার সাথে তার কাহিনী বলছিলো আর কাদছিলো । এমন হাজারো ঘটনা ।মফি ডাঃ নিরীহ এবং জনপ্রিয় মানুষ । তাহেরের ভাই স্রেফ নামাজ আর আপন ভূবনে বিচরণ ।তাদের কে হয়রানি করা হয়েছে তা ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয় ।আমার ইউনিয়নের দুশ মানুষ কে গত নির্বাচনে র পর ডিবি আর পুলিশ দিয়ে হয়রানি করা হয়েছে । তা কয়জন জোট করে করেছিল তা সবাই অবগত ।
আশার বিষয় বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত । প্রশাসনে অনেক সৎ ও ভালো মানুষের সমাগম ।মানুষ শান্তি তে আছে ।
ও সব বুজুরগি মানুষ খাবে না । সততা আর আস্হা একবার চলে গেলে মুশকিল ।
তাই বলছি ভোটের বাকশো ভোরতে হলেআম জনতাই ভরসা ।
মানুষ এখন বেশ বুঝে তাই উড়ো ফোন আর ঐ দিক টার গল্প কি হবে ।

Yeorab Hossain
Yeorab Hossain





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *