রবিউল ইসলামঃ শ্যামনগরে বে-সরকারী প্রেগন্যাট কেয়ার কর্নার কর্তৃপক্ষের অবহেলায় নবজাতক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি করেছে শিশুর পিতা শাহাবুদ্দীন। মৃত্যুর শিশুর পিতা জানান তার স্ত্রী কেয়া পারভীন (২০) কে গত ২৩ নভেম্বর শ্যামনগর সদরে প্রেগন্যাট কেয়ার কর্নারে এ অবস্থিত মেডিকেল সাইন্স ল্যাব এর ডাঃ এস আর এন তারিনাকে দেখান। ডাঃ গর্ভাবতী কেয়াকে আল্ট্রাসোনা করে বাচ্চা ঠিক আছে নরমালে বাচ্চা ডেলিভারী হবে বলে প্রেগন্যাট কেয়ার কর্নার হাসপাতালে ভর্তি করাতে বলে। রাতে কেয়ার অবস্থা খারাপ হতে থাকে। বাচ্চাটা নরমালে হওয়ার জন্য সারা রাত স্যালাইন চলে আর স্যালাইনের মধ্যে বিভিন্ন ঔষধ পুশ করে ডাঃ খাদিজাতুল কোবরা। কেয়ার অবস্থা আরো খারাপ হতে থাকলে রেহেনা কেয়ার পেট চেপে চেপে ডেলিভারি করায়। অথচ নবজাতক শিশুটি তখন মারা গেছে। এ ঘটনায় উক্ত ক্লিনিকে গিয়ে দেখা গেছে তালা ঝুলিয়ে সকলে পালিয়ে গেছে। ক্লিনিক মালিক রেহানার মুঠোফোনে বার বার কল করলে ফোনটি রিসিভ না হওয়ায় কথা বলা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনায় শ্যামনগর সরকারি হাসপাতালের পরিবার পরিকল্পনা কমকর্তা ডাঃ অজয় কুমার সাহার সাথে কথা হলে তিনি বলেন বিষয়টি আমি জানিনা তবে খোঁজ নিচ্ছি। আর এ ঘটনার আমার কাছে কোন অভিযোগ করলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিব।
Yeorab Hossain
Yeorab Hossain
-1:45





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *