সমাজের আলো : বাঁশখালীর পুকুরিয়া ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামে মাংস রান্না স্বাদ না হওয়ায় আইরিন আক্তার (২১) নামের এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাঁশখালী থানা পুলিশ গতকাল (২৪ জুলাই) রাতে আনোয়ারা উপজেলা হাসপাতালে স্বামীর ফেলে যাওয়া গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।ঘটনার পর পর স্বামী ও ভাসুর পলাতক রয়েছে। হত্যার পর শ্বশুরবাড়ির লোকজন গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আইরিন আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার করে।জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১০ আগস্ট বাঁশখালী উপজেলার পুকুরিয়া ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের অটোরিকশাচালক হারুনুর রশিদের সঙ্গে সাধনপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ সাধনপুর গ্রামের আবু ছালেকের মেয়ে আইরিনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের টাকার জন্য বারবার বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া গতো আইরিনকে। এনিয়ে একাধিকবার সালিসও হয়েছে এলাকায়। ২১ জুলাই স্বামী হারুনুর রশিদ স্থানীয় এক প্রতিবেশীর দেয়া কোরবানির গরুর মাংস এনে আইরিনকে রান্না করতে দেন। আইরিন ওই মাংস রান্না করেন। তবে, মাংস খেয়ে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন স্বাদ পাননি বলে অভিযোগ করেন। মাংসের স্বাদ তেতো হওয়ার ঘটনা প্রতিবেশীদেরও ডেকে দেখানো হয়। এ ঘটনায় হারুনুর রশিদ আইরিনকে কয়েকদফা পিটিয়ে জখম করে। গতকাল (শনিবার) পর্যন্ত আইরিন ঘরের কাজ করলেও ভাত খাওয়া বন্ধ করে দেন। শনিবার সকাল ৯টায় আইরিনকে আবারো মারধর করলে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *