দেশের খবর: রাজধানীর মিরপুরের টোলারবাগে গতকাল শনিবার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যে ব্যক্তি মারা গেছেন, তার পাশের বিল্ডিংয়ে বসবাস করা আরেক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে রোববার। তবে মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি।

মৃত মোজাম্মেল হককে অসুস্থ হওয়ার পর কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। টোলারবাগ মসজিদ কমিটির সেক্রেটারি ছিলেন তিনি।

এলাকাবাসী জানান, গত বৃহস্পতিবারেও টোলারবাগে এক ব্যক্তি মারা যান।

জানা গেছে, রোববার সন্ধ্যার পর অসুস্থ হওয়ায় তাকে ফায়ার সার্ভিসের অ্যাম্বুলেন্সে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার মৃত্যু হয়।

আগের দিন করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতুবরণ করা সরকারি কলেজের একজন অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক (৭৩) রাজধানীর ওই টোলারবাগেই বসবাস করতেন।

তার মৃত্যুর পর থেকেই টোলারবাগ নেয়া বিশেষ ব্যবস্থার মধ্যে আজকে মোজাম্মেলের মৃত্যু হলো।

তার মৃত্যুর পর টোলারবাগবাসীকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়ে মসজিদ থেকে আগামীকাল ফজর থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত জামায়াত বন্ধ থাকার ঘোষণা দেয়া হয়।

ওই এলাকায় কিছুক্ষণের মধ্যে চলাফেরা সীমিতকরার ঘোষণা দেয়া হয়। সকল সহযোগিতা দেবার আশ্বাসও দেয়া হয়। টোলারবাগকে অবরুদ্ধ করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেে এলাকাবাসী।
গতকাল টোলারবাগে মারা যাওয়া ব্যক্তির ছেলে ও পরিবার জানিয়েছিল, ৭৩ বছর বয়সী মানুষটি শুধু বাসা এবং মসজিদের মধ্যে যাতায়াত সীমিত রেখেছিলেন।
গতকাল তার মৃত্যুর পর থেকেই রাজধানীর মিরপুরের উত্তর টোলারবাগের যে বাসভবনে তিনি বসবাস করতেন, সেটাসহ ওই এলাকার আরও কিছু ভবন লকডাউন করার নির্দেশ দেয় সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর। নির্দেশনা অনুযায়ী ওই ভবন ঘিরে রাখে পুলিশ। আশেপাশের এলাকায় চলাচলও সীমিত করা হয়।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *