সমাজের আলো। ।ধারের টাকা ফেরত না পেয়ে ১২ বছরের কন্যা শিশুকে তুলে নিয়ে দেড়মাস ধরে আটকে রেখে ধর্ষন করছিল চার পাষন্ড। অবশেষে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টানা ৩৬ ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে কক্সবাজার থেকে ওই শিশু কন্যাকে উদ্ধার করে র্যা ব। শুক্রবার রাতে এ তথ্য জানান র্যা ব-৭ এর মিডিয়া অফিসার ও সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান মামুন। তিনি জানান, কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন কস্তুরাঘাট ও খুরুশকুল এলাকায় অভিযান চালিয়ে একটি মেয়ে শিশু উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় শিশুটিকে দীর্ঘদিন আটকে রেখে ধর্ষণের ঘটনায় চার পাষন্ডকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার হওয়া চারজন হলেন, কক্সবাজার সদর উপজেলার খরুলিয়া চেয়ারম্যানপাড়ার মো. শাহাব উদ্দিন (২৮), তার সহযোগী খুরুসকুল হাটখোলাপাড়ার মো. নুরুল আলম (৩৮), পেঁচারঘোনার লোকমান হাকিম (৩৪) ও পেকুয়া উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের আরমান হোসেন (২৭)। মাহমুদুল হাসান মামুন জানান, বৃহস্পতিবার এক নারী র্যা বকে অভিযোগ করেন গত ১ সেপ্টেম্বর শাহাব উদ্দিন ও তার ৩ জন সহযোগী মিলে তার ছোট মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে প্রায় দেড় মাস যাবত অজানা স্থানে আটকে রেখে ধর্ষণ করছে। অভিযোগের ভিত্তিতে র্যা ব-৭ ঘটনার সত্যতা যাচাই এবং আসামিদের গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে ছায়া তদন্ত শুরু করে। একপর্যায়ে র্যা ব-৭ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে ধর্ষণকারী ও তার সহযোগীরা কক্সবাজার জেলার সদর থানা এলাকায় অবস্থান করছে। এ তথ্যের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার থেকে টানা ৩৬ ঘন্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে ভিকটিমকে উদ্ধার ও ধর্ষকদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় র্যা ব সদস্যরা। মাহমুদুল হাসান মামুন বলেন, আসামিরা বারবার তাদের অবস্থান পরিবর্তন করায় তাদের অভিযানটি ছিল কষ্টসাধ্য। এক পর্যায়ে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে আসামিরা কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন কস্তুরা ঘাট এলাকায় অবস্থান করছে। এ তথ্যের ভিত্তিতে র্যা ব অভিযান শুরু করে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *