সমাজের আলো : পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে পশ্চিম সুন্দরবনের খুলনা রেঞ্জের বনজসম্পদ রক্ষায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে বন বিভাগের স্টেশন ও টহল ফাঁড়িতে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে সুন্দরবনে।বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, সুন্দরবনে হরিণ শিকার, অবৈধভাবে গাছ কাটা এবং বিষ দিয়ে মাছ শিকার বন্ধে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় খুলনা রেঞ্জ কর্মকর্তার কার্যালয়ে (নলিয়ানে) এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বিশেষ বিশেষ টিম গঠন করে টহল জোরদারসহ প্রত্যেক স্টেশন কর্মকর্তার সমন্বয়ে টহল কার্যক্রম অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।খুলনা রেঞ্জের এসিএফ মো. আবু সালেহ’র সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন রেঞ্জ সহযোগী কাজী মাহফুজুল হক, বানিয়াখালি স্টেশন কর্মকর্তা নির্মল কুমার মন্ডল, কাশিয়াবাদ স্টেশন কর্মকর্তা আঃ হাকিম, কালাবগি স্টেশন কর্মকর্তা মনির হোসেন, নলিয়ান স্টেশন কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন, সুতারখালি স্টেশন কর্মকর্তা প্রেমা নন্দ মন্ডল, নিলকোমল বিশেষ টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল হাসান, হড্ডা টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম প্রমূখ।সভায় জানানো হয়, ঈদকে সামনে রেখে চোরাকারবারীরা সুন্দরবনের কাঠ পাচার করে আর্থিক ফায়দা লুটে থাকে। এ ছাড়াও হরিণ নিধনযজ্ঞে মেতে ওঠে তারা। অন্যদিকে সুযোগ বুঝে বিষ প্রয়োগ করে মাছ শিকার করে থাকে অসাধু জেলেরা। এ বছর এ সুযোগ যাতে কেউ কাজে না লাগাতে পারে সেদিকে লক্ষ্য রেখে বন বিভাগ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।খুলনা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) আবু সালেহ বলেন, ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্টেশন ও টহল ফাঁড়িতে কর্মরত বন বিভাগের স্টাফদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। তাছাড়া স্মার্ট টিমের পাশাপাশি রাত-দিন বিভিন্ন স্টেশন ও টহল ফাঁড়ির সমন্বয়ে টহল কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হয়েছে।পশ্চিম সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) ড. আবু নাসের মোহসিন হেসেন বলেন, ঈদ উপলক্ষে সুন্দরবনের পুরো এলাকায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *