সমাজের আলো: বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের মেগা কিচেনে লোহার কড়াইয়ে এক সঙ্গে চার হাজার মানুষের খাবার রান্না করা যাবে। গতকাল কেরানীগঞ্জের গদাবাগ এলাকায় বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের মেগা কিচেনে লোহার কড়াইয়ে এক সঙ্গে চার হাজার মানুষের খাবার রান্না করা যাবে। গতকাল কেরানীগঞ্জের গদাবাগ এলাকায়ছবি: মানসুরা হোসাইন কড়াইটির এক পাশ থেকে আরেক পাশের ব্যাস ৮ দশমিক ৬ ফুট। মানে কয়েকজন মানুষ কড়াইয়ের ভেতরে টান টান হয়ে শুয়ে ঘুমাতে পারবেন। লোহার এ কড়াইয়ের ওজন এক টন। আর এতে এক হাজার কেজির বেশি রান্না করা যাবে। রান্নার সময় খাবার নাড়া দেওয়ার জন্য জন্য কড়াইয়ের প্রায় সমান সিমেন্টের চুলার চার পাশে পাকা টুল বসানো হয়েছে। কড়াইয়ের নিচে দাউ দাউ করে জ্বলছে চারটি আলাদা আলাদা গ্যাসের চুলা। কড়াইসহ এই অবকাঠামো তৈরিতে খরচ হয়েছে দুই লাখ টাকা। এই হলো বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের মেগা কিচেনের চিত্র। বিদ্যানন্দের স্বেচ্ছাসেবকেরা বলছেন, এটি দেশের সবচেয়ে বড় কড়াই বলেই মনে করা হচ্ছে। এ কড়াইয়ে একসঙ্গে চার হাজার মানুষের রান্না করা যাবে। তবে এখন পর্যন্ত দেড় হাজারজনের রান্না একসঙ্গে করা হয়েছে। রান্না শুরু এবং শেষে এই কড়াই ধোয়ার কাজটিও কঠিন। একজন স্বেচ্ছাসেবক কড়াইয়ের ভেতরে ঢুকে তা পরিষ্কার করেন। পরে তিনি কড়াই থেকে বের হলে বাঁশে কাপড় পেঁচিয়ে তা আবার ধোয়া হয়। ঢাকার কেরানীগঞ্জে ১৩ জানুয়ারি থেকে এ কড়াইতে রান্না শুরু হয়েছে। কড়াইটির পাশেই বড় করে লেখা, ‘সেরা সম্পর্কগুলো খাবার শেয়ার থেকে সৃষ্টি হয়






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *