সমাজের আলো : মাওলানা তৌহিদ বিন আজহার আশুলিয়ায় এক মাদ্রাসার শিক্ষার্থীকে বাসায় ডেকে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে মাওলানা তৌহিদ বিন আজহার (৫৬) নামে মাদ্রাসার এক প্রিন্সিপালকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর মিরপুরের কাফরুল থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ। তিনি আশুলিয়ার খেজুরবাগান এলাকায় মাদ্রাসা হুরে জান্নাত ও নূরে মদিনার প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল। পুলিশ জানায়, আশুলিয়ায় খেজুরবাগানে একটি ভবন ভাড়া করে সেখানে মাদ্রাসার কার্যক্রম চালাতেন মাওলানা তৌহিদ বিন আজহার। ভবনটির নিচ তলায় তিনি পরিবারসহ বসবাস করতেন এবং উপরে ছাত্রী হোস্টেলসহ মাদ্রাসার কার্যক্রম চালাতেন। এক সপ্তাহ আগে গত ১৫ জানুয়ারি (শুক্রবার) দুপুরে স্ত্রী বাবার বাড়িতে বেড়াতে গেলে তিনি মাদ্রাসার ১১ বছরের এক শিক্ষার্থীকে বাসায় ডেকে এনে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। বিষয়টি ওই শিশু তার পরিবারকে সহপাঠীদের মাধ্যমে চিরকুটে লিখে জানালে গা ঢাকা দেন মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা তৌহিদ বিন আজহার। পরে শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে গত ২০ জানুয়ারি আশুলিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হলে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আল মামুন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল মিরপুরের কাফরুল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এস এম কামরুজ্জামান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *