যশোর প্রতিনিধি : যশোরে যৌতুক দাবীর অভিযোগে সোমাইয়া আক্তার মিম নামে এক নারীর বিরুদ্ধে আদালতে একটি মামালা হয়েছে। রোববার ওই নারীর স্বামী সদরের চাঁদপাড়া গ্রামের আব্দুর রহমান বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। অতিরিক্তি চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মারুফ আহমেদ অভিযোগের তদন্ত করে প্রতিবেতন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদরে চেয়ারম্যানকে। মীম শহরতলীর শেখহাটি বাবলাতলার শাহীন হোসেনের মেয়ে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২১ অক্টোবর পারিবারিক ভাবে মিমকে বিয়ে করেন আব্দুর রহমান। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতে আব্দুর রহমান লক্ষ্য করেন তার স্ত্রী মিম উচ্চাভিলাসী জীবন যাপনে অভ্যস্থ। নামীদামি জিনষপত্র এনে দিতে ব্যর্থ হলে মিম তার স্বামীর সাথে দূর্বব্যহার ও সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করত। স্ত্রীর চাহিদা পূরনে যথাসাধ্য চেষ্টা করত আব্দুর রহমান। তারপরও নানা অজুহাতে মিম সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করত। একপর্যায়ে মিম তার স্বামীকে ১০ কাঠা জমি তার নামে লিখে দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। বিষয়টি আব্দুর রহমান শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের জানালে তারা কর্ণপাত করেনি। গত ২ সেপ্টম্বর আব্দুর রহমানের শাশুড়ি তার বাড়িতে আসেন। মিমের যৌতুকের বিষয়টি নিয়ে কথা উঠলে দাবিকৃত ১০ কাঠা জমি তার নামে লিখে না দিলে সংসার করবেনা বলে জানিয়ে চলে যায়। বিষয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে আব্দুর রহমান বাদী হয়ে যৌতুক নিরোধ আইনে আদালতে এ মামলা করেছেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *